আগামী সংসদ নির্বাচনে জোট শরিকদের মধ্যে আসন বণ্টন নিয়ে চাপের মুখে পড়তে যাচ্ছে বিএনপি। নির্বাচনের মাত্র আড়াই মাস বাকি থাকলেও আসনের নিশ্চয়তা না পাওয়ায় ইতিমধ্যে ২০ দলীয় জোট ছেড়েছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপ ও ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি। সংশ্নিষ্টরা জানাচ্ছেন, বিএনপির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে আরও কয়েকটি দলও জোট ছাড়ার চিন্তাভাবনার মধ্যে রয়েছে।

অন্যদিকে, নতুন মিত্র হিসেবে ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে’ যোগ দিয়েও আসন বণ্টনের চাপেই পড়তে যাচ্ছে বিএনপি। এরই মধ্যে ঐক্যফ্রন্টের শরিক গণফোরাম, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি ও নাগরিক ঐক্য এবং নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের অন্তত একশ’ আসনে বিএনপির কাছে মনোনয়ন চাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ লক্ষ্যে গণফোরাম ৩০, জেএসডি ৩০ ও নাগরিক ঐক্য ৩০ দলের সম্ভাব্য প্রার্থীর খসড়া তালিকা তৈরি করেছে। একই সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নেতারাও নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তাদের জন্য ১০টি আসন চাওয়া হবে। সমকাল ঐক্যফ্রন্টের তিন দলের প্রাথমিক সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা হাতে পেয়েছে। তবে সম্ভাব্য এ তালিকা আরও দীর্ঘ হবে বলে জানিয়েছেন দলগুলোর দায়িত্বশীল নেতারা।

দলীয় সূত্র জানায়, এ পরিস্থিতিতে আসন বণ্টন নিয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের সামনে বিএনপি। আগের অবস্থান থেকে সরে আসার হিসাব-নিকাশও কষছে দলটি। বিশেষ করে ২০ দলীয় জোটের পাশাপাশি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করেও ক্ষান্ত হয়নি তারা। এখন ধর্মভিত্তিক কয়েকটি রাজনৈতিক দল এবং বামপন্থি আরও কয়েকটি দলকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে ভিড়িয়ে জোটের পরিধি বড় করার চেষ্টা করছে। একই সঙ্গে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়ার পরিকল্পনাও রয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী জোটের পরিধি বৃদ্ধি ও নাগরিক সমাজের উল্লেখযোগ্য প্রতিনিধিকে পাশে পেলে আসন বণ্টনের ক্ষেত্রে বড় ধরনের ছাড় দিতে পারে সংসদের বাইরে থাকা বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সমকালকে বলেছেন, নির্দলীয় সরকারের অধীনে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ সাত দফা দাবি ও ১১ লক্ষ্য নিয়ে আন্দোলনের কর্মসূচি পালনকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন তারা। সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি আদায় হলে নির্বাচনে আসন বণ্টন নিয়ে আলোচনা করবেন। অবশ্য ২০ দলীয় জোটের যোগ্য প্রার্থীদের জোটগত মনোনয়ন দেওয়া হবে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গেও নির্বাচনী মোর্চা হতে পারে। একসঙ্গে নির্বাচন করলে ঐক্যফ্রন্টভুক্ত সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বৈঠক করে আলোচনার মাধ্যমে যোগ্য ও জনপ্রিয় প্রার্থীদের জোটগত মনোনয়ন দেওয়া হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপি কত আসন জোটের শরিকদের দেবে, তা এখনই বলা যাবে না। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে বিএনপি যে কোনো ত্যাগ স্বীকার ও ছাড় দিতে প্রস্তুত রয়েছে বলে জানান তিনি।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না সমকালকে বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর এখন দাবি আদায়ের কর্মসূচি নিয়েই ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী এবং আসন বণ্টন নিয়ে এখনও কোনো আলোচনা হয়নি। দাবি আদায়ের পরই প্রার্থী ও আসনের বিষয়টি আসবে।

জেএসডির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন সমকালকে বলেন, আসন ভাগাভাগির বিষয়ে এখনও কোনো আলোচনা হয়নি। সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি আদায়ে আগামী ২৩ অক্টোবর সিলেটের সমাবেশসহ সারাদেশে বিভাগীয় ও জেলা শহরে সমাবেশই এখন মুখ্য বিষয়।

গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী আমাদের সময় কে  বলেন, আসন বণ্টন নিয়ে আলোচনার সময় এখনও আসেনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নানা টানাপড়েনের পর বিএনপির সঙ্গে ঐক্য গড়ার পর বিশিষ্ট আইনজ্ঞ ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণফোরাম ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া, আ স ম আবদুর রবের নেতৃত্বাধীন জেএসডি, মাহমুদুর রহমান মান্নার নেতৃত্বাধীন নাগরিক ঐক্যের দায়িত্বশীল নেতারা সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রার্থীদের নামের খসড়া তালিকা তৈরিতে দফায় দফায় বৈঠক করছেন। একটি খসড়া তালিকাও তৈরি করছেন দায়িত্বশীল নেতারা। অনানুষ্ঠানিকভাবে দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পরামর্শক্রমে জনপ্রিয় নেতাদের নির্বাচনে প্রার্থী হতে প্রস্তুতি নেওয়ারও নির্দেশনা দিচ্ছেন।

সরেজমিনে পার্টিগুলোর কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী ও দলের নেতাকর্মীরা প্রতিদিন ভিড় করছেন। অনেক দিন নিষ্ফ্ক্রিয় থাকলেও এখন মনোনয়নের আশায় সক্রিয় হয়ে উঠেছেন। মনোনয়নের জন্য লবিং শুরু করেছেন। অনেকে বিএনপির বর্তমান সংকটের কথা বলে তাদের কাছ থেকে বেশি আসন নিয়ে ‘নির্বাচনী মোর্চা’ করারও পরামর্শ দিচ্ছেন।

ঐক্যফ্রন্টের তিন দলের কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা জানান, প্রাথমিকভাবে তারা ৩০টি করে আসন চাওয়ার চিন্তাভাবনা করলেও সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে এ সংখ্যা কমবেশি হতে পারে।

গণফোরামের সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা :জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শরিক গণফোরামের সম্ভাব্য

Share.

About Author

Leave A Reply